এ বছর পূর্বঘোষিত সংখ্যার অর্ধেক দিতে পারবে ফাইজার

ফাইজার ও বায়োটেকের তৈরি টিকা

নিউইয়র্কভিত্তিক ওষুধ কোম্পানি ফাইজারের তৈরি করোনাভাইরাসের টিকা এখন মার্কিন ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের (এফডিএ) অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে। খুব শিগগিরই এই অনুমোদন হয়ে যাবে। প্রস্তুত বাকি সব অনুষঙ্গ। কিন্তু ৩ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার প্রতিষ্ঠানটি জানাচ্ছে, চলতি বছর তারা যত সংখ্যক টিকা সরবরাহের পরিকল্পনা করেছিল, তার অর্ধেক করতে পারবে। সরবরাহ ব্যবস্থায় হওয়া সংকটের কারণে এমনটা হচ্ছে বলে জানিয়েছে তারা।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল জানিয়েছে, ২০২১ সালের মধ্যে ফাইজার করোনা টিকার ১০০ কোটি ডোজ সরবরাহ করতে পারবে বলে জানিয়েছিল। এখনো তারা এই সরবরাহের বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী। তবে চলতি বছর তারা যে ১০ কোটি টিকা সরবরাহের কথা বলেছিল, তা তারা পারবে না। সরবরাহ ব্যবস্থায় তৈরি হওয়া সংকটের কারণে চলতি বছরের শেষ নাগাদ তারা ৫ কোটি করোনা টিকা বিশ্বব্যাপী সরবরাহ করতে পারবে বলে জানিয়েছে।

নিউইয়র্ক ডেইলি নিউজ জানায়, ফাইজারের মুখপাত্র জানিয়েছেন, টিকা তৈরির কাঁচামালের সরবরাহ পেতে অনুমিত সময়ের বেশি ব্যয় হচ্ছে। এ ছাড়া ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের ফল আসতেও দেরি হয়েছিল।

যুক্তরাষ্ট্রসহ সারা বিশ্বের মানুষ এখন করোনার টিকার জন্য অপেক্ষা করে আছে। এ ক্ষেত্রে প্রথম সুখবরটি দিয়েছিল ফাইজার ও বায়োএনটেক। যুক্তরাজ্য ২ ডিসেম্বর ফাইজারের টিকার অনুমোদন দিয়েছে, যা করোনা প্রতিরোধে ৯৫ শতাংশ কার্যকর। যুক্তরাষ্ট্রে এটি এফডিএর অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে।

Related posts